রাজনৈতিক দল কাকে বলে | জেনে নিন বিস্তারিত

গণতান্ত্রিক শাসন হচ্ছে জনগণের শাসন। এই ব্যবস্থায় জনগণের দ্বারা ভোটের মাধ্যমে শাসক নির্বাচিত হয়। এই আধুনিক গণতন্ত্রকে প্রতিনিধিত্বমূলক গণতন্ত্রও বলা চলে। একে কার্যকর করতেই রাজনৈতিক দলের জন্ম। রাজনৈতিক দলই এর মূল চালিকাশক্তি। বর্তমান বিশ্বে সব দেশেই রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব লক্ষ্যনীয়।আসনু জেনে নেয়া যাক রাজনৈতিক দল কাকে বলে ও এর সকল বিস্তারিত তথ্য।

রাজনৈতিক দলের সংজ্ঞাঃ অধ্যাপক আর এম ম্যাকাইভারের মতে, রাজনৈতিক দল হলো কোন একটি নীতিতে বিশ্বাসী এক গোষ্ঠী যা সাংবিধান মেনে সরকার গঠন করতে সচেষ্ট হয়।

আর্নেস্ট বার্কারের মতে, রাজনৈতিক দল হচ্ছে মতামত প্রকাশের এমন এক সংস্থা যা সাধারণ জাতীয় স্বার্থ সম্পর্কে সচেতন থাকে এবং নির্বাচকদের সামনে সাধারণ জাতীয় সম্ভাবনা ও ব্যাপ্তির এক কর্মসূচির উত্থাপন করে ।

এডমন্ড বার্ক বলেছেন, যখন কোন জনসমষ্টি কোন নির্দিষ্ট স্বীকৃত নীতির ভিত্তিতে এবং সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে জনসাধারণের কল্যাণ সাধনের জন্য সঙ্ঘবদ্ধ হয় তখনই একটি রাজনৈতিক দলের উদ্ভব হয় ।

রাজনৈতিক দল কাকে বলে 1

 

 

গিলক্রিস্ট মনে করেন, রাজনৈতিক দল হচ্ছে নাগরিকদেরকে নিয়ে গঠিত এমন এক সুসংহত গোষ্ঠী যারা অভিন্ন রাজনৈতিক মতামত অনুসারে এবং যারা একটি রাজনৈতিক একক হিসেবে কাজ করে সরকার নিয়ন্ত্রণ করতে সচেষ্ট হয় ।

উপরোক্ত পর্যবেক্ষণ থেকে বলা যায়, রাজনৈতিক দল আদতে একটি জনগোষ্ঠী, যারা রাষ্ট্রের সমস্যা সমাধানের জন্য জনসমর্থনের সাহায্যে সংবিধান অনুযায়ী সরকার গঠন করে থাকে।

একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের সদস্যরা একটি নির্দিষ্ট মতাদর্শে বিশ্বাসী। এরা বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ে একমত প্রকাশ করে থাকে, নানা কর্মসূচির দ্বারা ঐক্যবদ্ধ হয়।

প্রতিটি রাজনৈতিক দলের লক্ষ্য হচ্ছে ক্ষমতায় গিয়ে নিজেদের মতাদর্শ অনুযায়ী রাষ্ট্র পরিচালনা করা। রাজনৈতিক দল দেশের সব মানুষের জন্য সমানভাবে কাজ করে।

প্রায় সব দেশেই রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব থাকলেও সৌদি আরবে কিন্তু নেই। সেখানে রাজপরিবারের মত ও ইচ্ছাই শেষ কথা। আবার, ২০০৫ সাল অবধি উগান্ডায় আইন করে রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

রাজনৈতিক দলের প্রয়োজনীয়তাঃ

গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থাকে চালিয়ে নিতে রাজনৈতিক দল দরকারী। এটি ছাড়া গণতন্ত্র সম্পূর্ণ হয় না। প্রতিটি রাজনৈতিক দলের নিজের আদর্শ থাকে। কোন দল ধর্মভিত্তিক আবার কোন দল ধর্মনিরপেক্ষ হয়। রাজনৈতিক দল দেশের মানুষের নানা সমস্যার সমাধান করে। নির্বাচনের পূর্বে জনমত সংগ্রহের জন্য এরা নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে। আর নির্বাচনে নির্বাচিত হলে কর্মসূচিতে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষার চেষ্টা করে। এছাড়া দেশের মানুষ রাজনৈতিক জ্ঞান লাভ করে থাকে রাজনৈতিক দলের দ্বারা। সমাজের নানান রকম মানুষের স্বার্থ আলাদা। তাদের সেই প্রয়োজনীয়তাকে একত্রিত করে বাস্তবায়নের চেষ্টা করে দলগুলো।

বলা যায়, গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা রাজনৈতিক দল ছাড়া অচল। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র রাজনৈতিক দল ছাড়া চলতে পারে না। তাই, গণতন্ত্রের সুফল ভোগ করতে হলে রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব থাকা আবশ্যক।

 

দীপু মনির পরিচয়,জীবনী, পেশা, ধর্ম, রাজনৈতিক জীবন

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button