২০২৪ । মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা আইডিয়া

বর্তমান যুগে প্রগতিশীল দুনিয়ায় নারী-পুরুষের সমান অধিকার। পুরুষও যেমন আয় করছে, নারীও তেমনি আয় করছে। তবুও, আজও উপমহাদেশের একটা বড় অংশের নারীদের জন্য বাইরে বের হয়ে কাজ করা, আয় করা বা চাকরি করা খুব বেশি স্বস্তিদায়ক নয়।

অনেক নারীই আজকাল ব্যবসার দিকে ঝুঁকছেন কারণ, চাকরি তে স্বাধীনতা থাকে না সেভাবে কিন্তু ব্যবসা নিজস্ব শর্তে করা যায়। এই প্রতিবেদনে আমরা নারীদের জন্য এমন কিছু ব্যবসার ধারণা দিচ্ছি, যার মাধ্যমে সে ঘরে বসেই কাজ করে ইনকাম করতে পারবে এবং দেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রেও একটি শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে পারবে। 

. ফ্যাশন ডিজাইন : 

প্রত্যেক নারীরই ড্রেস বা গহনার প্রতি অন্যরকম এক টান কাজ করে। কাপড় বা গহনা নিয়ে ঘরে বসে ব্যবসা আজকাল প্রায় অধিকাংশ নারীর জন্যই বেশ পপুলার একটি আইডিয়া। এর জন্য খুব বেশি পুঁজির প্রয়োজনীয়তাও নেই। স্বল্প পুঁজি দিয়েই ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। তাই ক্ষতির আশংকাও কম। ব্যবসা শুরু করার পর চেষ্টা করতে হবে ব্র‍্যান্ড নেম বানানোর। কারণ, লোকজন আজকাল ব্র‍্যান্ডের দিকেই ঝুঁকেছে। 

দালাল ছাড়া বিদেশ যাওয়ার উপায় ২০২৪

. ফটোগ্রাফি: 

ফটোগ্রাফি আজকাল জনপ্রিয় একটি ব্যবসা। প্রথমে নিজের স্মার্ট ফোনের সাহায্যে ছবি তুলতে তুলতে মোটামুটি একটা পরিচিতি হয়ে গেলে ভালো মানের ক্যামেরা ব্যবহার করা শুরু করতে হবে। এই ব্যবসাতে নিজের একটি দারুণ পোর্টফলিও তৈরী করে রাখতে হবে। অনুষ্ঠান বাড়ি, ব্যক্তিগত পরিসরে তোলা ছবি বা প্রাকৃতিক ফটোগ্রাফি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে হবে। এর মাধ্যমে পরিচিতি বাড়বে।

. ফিটনেস প্রশিক্ষক: 

আপনি যদি শরীর নিয়ে সচেতন হন, তাহলে ফিটনেস প্রশিক্ষক পেশাটি আপনার জন্য পারফেক্ট হতে পারে। আপনার মত আরও যারা স্বাস্থ্য নিয়ে সচেতন মানুষ আছেন, তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসা দাঁড় করাতে পারেন। এই ব্যবসার প্রথমে অর্থ তেমন না এলেও, পরিচিতি বাড়ার সাথে সাথে আর্থিক উপার্জনও বেড়ে যাবে৷ 

. ব্লগিং: 

লেখালেখি করার শখ থাকলে ব্লগিং করার মাধ্যমে তাকে কাজে লাগানো যায়। এর জন্য একটি ওয়েবসাইট বানানো অত্যাবশ্যক। খাবার, ট্রাভেল, বিউটি টিপস, স্বাস্থ্য ইত্যাদি বিষয় নিয়ে সহজেই ব্লগিং করে আর্থিক উপার্জন করা সম্ভব। তবে, এটি সময়সাপেক্ষ। ইন্টারনেটের নানা বিষয় সম্বন্ধে জ্ঞান থাকলে এই পথে হাঁটা ও সফল হওয়া কঠিন কিছু নয়। 

. কুকিং বা রান্নাবান্না: 

রান্নাতে আগ্রহ অধিকাংশ মহিলাদের মধ্যেই দেখা যায়। বেশিরভাগ নারীরা বাড়িতে পরিবারের জন্য স্বাস্থ্যকর ও সুস্বাদু খাবার রান্না করে থাকেন। রান্না নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে খুব অল্প মূলধন দরকার। প্রথমে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেমন: ফেসবুক বা ইন্সটাগ্রামে একটি কুকিং চ্যানেল খুলতে হবে৷ এটি ইউটিউবে খুললেও হয়। পরবর্তীতে পরিচিতি বাড়লে হোম ডেলিভারি সুবিধা চালু করতে হবে। 

. বাগান বা নার্সারি: 

শৌখিন নারী যারা, তারা নানা ধরণের গাছ লাগাতে এবং গাছের পরিচর্যা করতে ভালোবাসে। শৌখিনতা থেকেও অর্থ উপার্জন সম্ভব। এতে শুধু অর্থ আসবে তাই নয়, পরিবেশগত উন্নয়নও ঘটবে। এই ব্যবসা শুরু করতে দুই হাজার থেকে তিন হাজার টাকা মাত্র পুঁজি দরকার। 

মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা

. বিউটি পার্লার: 

সাজগোজ পছন্দ করেন না, এমন নারী খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তবে, বিউটি পার্লার বা মেকাপ আর্টিস্ট হিসেবে ব্যবসা স্টার্ট করতে হলে মেকাপ সম্পর্কে জ্ঞান থাকা জরুরি। কোন কোম্পানির প্রোডাক্ট কীরকম, নানা রকম প্রোডাক্ট কীভাবে এপ্লাই করতে হবে তা না জানলে এই ব্যবসায় টেকা মুশকিল। এই ব্যবসা শুরু করলে নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় মেকাপ ভিডিও করে আপ্লোড করলে পরিচিতি বৃদ্ধি পায় এবং ব্যবসায় সুবিধা হবে৷ 

. নাচ বা গানের স্কুল: 

অনেক মহিলারা আছেন যারা নাচ বা গানে পারদর্শী। নিজের এই প্রতিভা ফেলে না রেখে একে অর্থ উপার্জন এর মাধ্যম হিসেবে বেছে নিলে মন্দ হয় না। প্রথম প্রথম তেমন ছাত্র ছাত্রী না পেলেও যত পরিচিতি বাড়বে, ততই স্টুডেন্ট এর সংখ্যা বাড়তে থাকবে৷ এই ব্যবসায় পুঁজি লাগে নাম মাত্র। এখানে পুঁজি মানে শুধু সময় খরচ করা। ঘরে বসে নাচ বা গান শেখানো হতে পারে নারীদের জন্য দারুণ একটা বিজনেস আইডিয়া। শুধু নাচ বা গান নয়। ছবি আঁকা বা আবৃত্তি বা অভিনয়ও থাকতে পারে এ তালিকায়। 

আর্থিকভাবে স্বাধীন হবার স্বপ্ন নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকল মানুষ দেখে। আমাদের উপমহাদেশের পরিসরে নারীর জন্য সুযোগ কম। বাইরে গিয়ে চাকুরী করা সব নারীর জন্য সম্ভব না। সেক্ষেত্রে ঘরে বসে স্বাধীন ভাবে অর্থ উপার্জন করার এই আইডিয়া গুলো অনেক নারীর উপকারে আসতে পারে। 

Leave a Comment