ফ্রান্স যেতে কত টাকা লাগবে | জানুন বিস্তারিত

আজকে আমরা কথা বলবো ফ্রান্সে কোন কাজের চাহিদা বেশি, ফ্রান্সে যেতে কত টাকা লাগে ইত্যাদি বিষয়ে।সেই সাথে ভিসা প্রক্রিয়া কিভাবে সম্পন্ন করবেন ফ্রান্সে যাওয়ার জন্য কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন এই কন্টাক্টার মধ্যে তুলে ধরবার সাপের আপনারা ফ্রান্স বিশ্বের সকল তথ্য এখানে পেয়ে যাবেন তাহলে চলুন পর্যায়ক্রমে দেখে নেওয়া যায়।
প্রতি বছর বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সে মানুষ পাড়ি জমাচ্ছে ফ্রান্সের ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে। বাংলাদেশ থেকে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছে তাই চাইলেই আপনি ফ্রান্সে গিয়ে কাজ করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারবেন এবং কিভাবে আপনি ফ্রান্স ভিসা পাবেন কত টাকা খরচ হবে ভিসা হাতে পাবার জন্য এ বিষয়টি নিয়ে আজকে আমরা ক্লিয়ার করব তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক। ফ্রান্সের ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে বিস্তারিত তথ্য।

ফ্রান্স কাজের ভিসা ২০২৩

ফ্রান্সে বৈধভাবে যাওয়া জেনে অনেকে মনে করে। শুধু অবৈধভাবে যাওয়া যায় তারা মনে করে কিন্তু এটি সম্পূর্ন মিথ্যা বানোয়াট। শুধু দালাল এই কথাগুলো বলে থাকে আপনার কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য তাদের এই চিন্তা-ভাবনার খুবই জঘন্য। আপনাকে সোজাসাপ্টা ফ্রান্সে পাঠাবে কিন্তু কোনো কাজ দেওয়া হবে না তাদের এই মিথ্যা বানোয়াট চক্করে পড়ে আপনি হতাশ হবেন।
কিন্তু আপনি সরকারিভাবে খুবই সহজে ফ্রান্সে যেতে পারবেন কঠিন কোন বিষয় হবেনা আপনাকে ফ্রান্সে যেতে। আপনি যদি ফ্রান্সে যেতে পারবেন এবং সরকারিভাবে যদি ফ্রান্সে যান তাহলে খুবই সহজে আপনি বেতন পাবেন এবং অন্যান্য দেশে থেকে অনেকটাই বেশি। সেই সাথে আপনি বাংলাদেশ থেকে সরাসরি ফ্রান্সে যাবার ভিসা আবেদন করতে পারবেন এবং ওয়ার্কবিষয়ে কাজ করতে পারবেন। বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সের কোন এখনো এজেন্সি হয়নি এবং অনেক এজেন্সীর কাছে আপনারা শুনেছেন যে ফ্রান্সে যাওয়ার যায়না এরকম কথা যারা বলে আসলে তারা ফানস বিষয়ে কিছুই জানে না এবং তাদের এজেন্সি সম্পর্কে এখন পর্যন্ত কোন ধারনা তাদের হয়নি।
কোন এজেন্সির মাধ্যমে জাতীয় চান আপনি যদি ফ্রান্সের অবৈধভাবে যেতে চান এবং ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যেতে চান তাহলে আপনার জন্য একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি চিঠি।

ফ্রান্সে কেন যাবেন 

ফ্রান্সে অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশি বেতন দেয় তাই আপনি ফ্রান্সের যাবেন ভিসা নিয়ে।আপনি কিন্তু সেখানে হোটেলে যদি কাজ করেন তাহলে আপনি মাসে দেড় লাখ থেকে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত কামাতে পারবেন। কেননা ফ্রান্সে তুলনামূলকভাবে কাজের গুরুত্ব অপরিসীম বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং দক্ষ কাজের লোক সংখ্যা হচ্ছে কম। সরকার নিয়োগ দিচ্ছে বৈদেশিক ভাবে শ্রমিককে। অন্যতম ভূমিকা এবং বর্তমানে চাহিদার তুলনায় ভূমিকা পালন করছে শ্রমিকরা।

ফ্রান্সে কি কাজের ভিসা পাওয়া যাচ্ছে 

ফ্রান্সের ভিসা পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশ থেকে খুব সহজেই এবং অন্যান্য 20 জন নিয়ে খুব সহজে বাংলাদেশ থেকে আপনি প্রান্তে যেতে পারবেন তবে এক্ষেত্রে কিছু প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টের প্রয়োজন হবে। ঠিকঠাকমতো যদি প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো আপনি জমা দিতে পারেন তাহলে আপনি বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সে যেতে পারবেন খুব সহজেই। বাংলাদেশের যদি ফ্রান্সের ভিসা নিতে সমস্যা হয় তাহলে আপনি দিল্লির এম্বাসী থেকে খুব সহজে ফ্রান্সের বিষয় নিয়ে নিতে পারবেন তবে এক্ষেত্রে কিছু বাড়তি টাকার প্রয়োজন হবে কিছু মাত্রায় টাকার খরচটা একটু বেড়ে যাবে। তবে শারীরিকভাবে খুব একটা বেশি বাড়ে না।
পাসপোর্ট করে খুব সহজেই যেতে পারবেন এবং ওয়ার্ক পারমিট নিতে পারবেন খুব খরচ একটু বেশি হয় তাও আপনি এ কাজটি করতে পারবেন দিল্লির মাধ্যমে। কিন্তু পাড়ি জমাচ্ছে বাংলাদেশের লোকেরা ফ্রান্সে।পরে তারা ভাঙচুর পুলিশের কাছে ধরা দিয়ে যাচ্ছে এবং সেখান থেকেই ফ্রান্সের মাধ্যম তৈরি করছি এই প্রচেষ্টা একটু অন্যরকম আপনার একসময় দেশে ফিরে আসতে হবেই।

ফ্রান্সের কাজের ভিসার জন্য কি কি প্রয়োজন 

আপনি যদি ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য ফ্রান্সে আবেদন করেন তাহলে তাদের দেওয়া কিছুই রিকোয়ার মেন্ট গুলো আপনাকে ফিলাপ করতে হবে তারপর আপনি ফ্রান্সের ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পাওয়ার যোগ্য হবেন।
চলুন শুরু করা যাক।
.পাসপোর্ট এর মেয়াদ ১ বছর।
.চার কপি ছবি পাসপোর্ট সাইজ এর।
.ফটোকপি এনআইডি কার্ডের।
.আপনার ফটোকপি নিবন্ধন কার্ড-এর
.শিক্ষাগত যোগ্যতা আবেদনকারী।
.অভিজ্ঞতা ইংরেজি ভাষায়।
.স্বাক্ষরিত সনদপত্র  চেয়ারম্যান কর্তৃক।
সবসে ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে উপরোক্ত বিষয়গুলো লাগবে এবং এই উপরোক্ত বিষয়গুলো যদি আপনি যথাযথভাবে তাহলে আপনাকে তারা ফ্রান্সে যাওয়ার ভিসা দিয়ে দিবে খুব সহজে।

ফ্রান্সে যেতে কত টাকা লাগবেঃ 

মিনিমাম তিন লক্ষ টাকা খরচ পড়বে যদি আপনি ট্রানসিতরি বিষয় নিয়ে যেতে চান। চার লক্ষ টাকা পড়বে যদি আপনি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যেতে চান একসাথে বিমান ভাড়া সহ আনুষঙ্গিক খরচ ধরা হয়েছে তবে বিমান ভাড়ার ক্ষেত্রে আপনাকে ছিল কম বেশি হতে পারে কিন্তু এর থেকে উত্তম নতুন আপডেট দেখে ফ্রান্সে যাওয়ার চিন্তাভাবনা করবেন।
আপনাকে একজন গ্রহণকারী সেটা টু আপনাকে প্রমাণ করতে হবে যদি আপনি টুরিস্ট ভিসা নিয়ে ফ্রান্সে যেতে চান বিভিন্ন ডকুমেন্ট দেখাতে হবে যে আপনি টুরিস্ট।
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button