কীভাবে বিএনপি ক্ষমতায় আসে,দেখে নেব: যুবলীগ চেয়ারম্যান 

আমরাও দেখে নেব, কীভাবে বিএনপি ক্ষমতায় আসে: যুবলীগ চেয়ারম্যান 

শেখ ফজলে শামস পরশ, যুবলীগের চেয়ারম্যান, বলেন, ‘বিএনপি উল্টো আমাদের অত্যাচারী এবং কর্তৃত্ববাদী সরকার হিসেবে উপস্থাপন করতে চাচ্ছে। তাদেরকে এত রাজনৈতিক সুযোগ দেওয়ার পরও তারা আমাদের বলছে, আমরা নাকি কর্তৃত্ববাদী সরকার, অত্যাচারী সরকার।’

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে শেখ ফজলে শামস আরও বলেন, ‘তারা নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে ওস্তাদ। তাদের পারদর্শিতা কোনোভাবেই ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। আরেকটা ব্যাপারে তারা পারদর্শী। মিথ্যাচারের রাজনীতি, প্রোপাগান্ডার রাজনীতি। আমরা দেখে নেব, তারা কীভাবে রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে।”

রাজধানীর ফার্মগেটে আনন্দ সিনেমা হলের সামনের সড়কে আয়োজিত এক সমাবেশে, আজ শনিবার যুবলীগ চেয়ারম্যান প্রধান অতিথির বক্তব্যে  এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে নৈরাজ্য ও তাণ্ডবের অভিযোগ এনে এ শান্তি সমাবেশের আয়োজন করে।

যুবলীগ চেয়ারম্যান, শেখ ফজলে শামস বলেন, “বিএনপি যখনই রাজনৈতিক কর্মসূচি দেয়, মানুষ আতঙ্কে থাকে, ভয় পায়, নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে। এ কারণেই যুবলীগ রাজপথে থেকে সাধারণ মানুষকে সাহস দেয়। যখনই তারা কর্মসূচি দেবে, যুবলীগও রাজপথে থাকব।”

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি বিএনপির সহ্য হচ্ছে না উল্লেখ করে , বি এন পি সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যকর রাজনৈতিক পদক্ষেপ নিয়ে উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে চায় কারণ বাংলাদেশের অগ্রগতি, সাফল্য তাদের সহ্য হচ্ছে না। ২০১৪ সালেও নির্বাচনের আগে দেশের সাধারণ মানুষের ওপর তারা তাণ্ডব চালিয়েছে। বাসে, ট্রেনে আগুন দিয়েছে ও সাধারণ মানুষকে হত্যা করেছে।

বিএনপি-জামায়াতকে হুঁশিয়ার করে শেখ ফজলে শামস বলেন, “সভা-সমাবেশ করেন। বিরোধী মতামত, বিরোধী দলের কার্যক্রমকে স্বাগত জানাই। এটা গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। কিন্তু কোনোভাবেই জনগণকে ভিকটিম বানানোর চেষ্টা করবেন না। জনগণের জানমালের ক্ষতি করলে, নিরাপত্তায় ব্যাঘাত ঘটালে যুবলীগের নেতা-কর্মীরা বসে থাকবে না।”

যুবলীগ নেতাকে প্রশ্ন করা হলে বিএনপি কীভাবে ক্ষমতায় আসবে উত্তরে  বলেন, ‘১৪ বছর কেন, এই বাংলাদেশে যত দিন মুক্তিকামী বাঙালি, তাদের প্রজন্ম এবং সন্তানেরা আছে, যত দিন যুবলীগ আছে, আমরা দেখে নেব তারা কীভাবে রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে। শেখ হাসিনার অধীনেই সাংবিধানিক ও সুশৃঙ্খলভাবে সবার অংশগ্রহণে নির্বাচন হবে, তাতে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি জয়ী হবে।”

সমাবেশের বিশেষ অতিথি ছিলেন মাঈনুল হোসেন খান। তিনি বলেন, “বিএনপি একটি মানবাধিকার হরণকারী জঙ্গি দল। তারা দেশের রাজনীতির নিয়ন্ত্রণ নিতে চায়, মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে চায়, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার স্বপ্ন দেখে।”

যুবসমাজ শপথ নিয়েছে জানিয়ে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “বাংলাদেশকে রুখে দিতে বিএনপি-জামায়াত যে ষড়যন্ত্র করছে, তার প্রতিবাদ করতে, দাঁতভাঙা জবাব দিতে যুবলীগই যথেষ্ট। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত যুবলীগ সারা দেশে রাজপথে থাকবে।”

ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেনের সঞ্চালনায় শান্তি সমাবেশে কেন্দ্রীয় ও মহানগর উত্তর যুবলীগের নেতারা বক্তৃতা করেন। সমাবেশে ঢাকা মহানগর উত্তরের বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড যুবলীগের হাজারখানেক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 

রাজনৈতিক দল কাকে বলে | জেনে নিন বিস্তারিত

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button