সংসদ নির্বাচনঃ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন না যারা

গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন এবং পরে উপনির্বাচন জিতে এসেছেন এমন ৭১ জন সাংসদকে এবার মনোনয়ন দেয় নি আওয়ামী লীগ। এই ৭১ জনের মধ্যে ৪ জন বিভিন্ন সময় পূর্ণমন্ত্রী ছিলেন। তাছাড়া, বর্তমান তিন প্রতিমন্ত্রীও পাননি মনোনয়ন। এক চিত্রনায়িকার সাথে ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনায় প্রতিমন্ত্রী পদ হারানো এক সাংসদকেও বাদ দিয়েছে আওয়ামী লীগ। বাদ পরেছেন একজন সাবেক পুলিশ প্রধান, যিনি পূর্বে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। 

কুষ্টিয়া ২ ও নারায়নগঞ্জ ৫ এই দুই আসন ফাঁকা রেখে আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ২৯৮ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন দল। সাধারণত, প্রতিবার জাতীয় নির্বাচনের সময়েই ৬০-৭০ টি প্রার্থী পালটায় আওয়ামী লীগ। এবারও তার ব্যতিক্রম হয় নি। গত পাঁচ বছর নানা কারণে বিতর্কিত সাংসদ, বয়সের কারণে, নিজ এলাকায় অপাংক্তেয়, স্বাস্থ্যগত কারণ বা দলের সমর্থন কম হওয়ার জন্য অনেক সাংসদ এবারে বাদ পড়েছেন। আবার, কিছু আসনে বাবার জায়গায় ছেলেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। এবার সর্বোচ্চ সাংসদ বাদ পড়েছেন ঢাকা বিভাগে, ১৬ জন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ খুলনা, যেখানে ১১ জন বাদ পড়েছেন। রাজশাহী ও চট্টগ্রামে ১০ জন করে সাংসদ বাদ পড়েছেন। ময়মনসিংহ বিভাগে ৯ জন সাংসদ বাদ পড়েছেন। সিলেট ও রংপুর বিভাগে ৬ জন করে সাংসদ ও বরিশাল বিভাগে ৩ জন সাংসদ সদস্য বাদ পড়েছেন। 

তিন প্রতিমন্ত্রী 

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেনের জায়গায় কুড়িগ্রাম ৪ আসনে বিপ্লব হাসানকে বেছে নিয়েছে আওয়ামী লীগ। 

খুলনা ৩ আসনে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ানের জায়গায় এস এম কামাল হোসেনকে বেছে নেওয়া হয়েছে। 

ময়মনসিংহ ৫ আসনে কে এম খালিদের জায়গায় এসেছেন আব্দুল হাই আকন্দ 

বাদ পড়েছেন সাবেক মন্ত্রীরাও

সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীরকে মনোনয়ন দেওয়া হয় নি এবার। চাঁদপুর ১ আসনে তার স্থানে লড়বেন সেলিম মাহমুদ। 

সাবেক পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ এবার ফরিদপুর ৩ আসনে মনোনয়ন পান নি। তার জায়গায় আওয়ামী লীগ বেছে নিয়েছে শামীম হককে। 

চট্টগ্রাম ১ আসনে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ এর স্থানে তার পুত্র মাহাবুবুর রহমান কে প্রার্থী করা হয়েছে। 

এছাড়া, ঢাকা ৭ আসনে হাজী মোহাম্মদ সেলিমের জায়গায় তার পুত্র মোহাম্মদ সোলাইমান সেলিমকে প্রার্থী করা হয়েছে। 

ছয় বিভাগে বাদ পড়েছেন যারা: 

ঢাকা মহানগরে বাদ পড়েছেন ৬ জন এমপি। টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, ফরিদপুর, মানিকগঞ্জ, নরসিংদী ও গাজীপুরে প্রার্থী বাদ দেওয়া ও পরিবর্তন করা হয়েছে। 

চট্টগ্রামে ৩ জন সংসদ সদস্যকে বাদ দিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। কুমিল্লা, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কক্সবাজারে প্রার্থী বাদ পড়েছেন এবং পরিবর্তিত হয়েছে। 

রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রামে প্রার্থী পরিবর্তন হয়েছে। 

রাজশাহী বিভাগের মধ্যে বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, নওগাঁ ও পাবনায় পূর্ববর্তী অনেক প্রার্থী মনোনয়ন পাননি। 

খুলনা বিভাগের যশোর, মাগুরা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাটেও আগের কিছু প্রার্থী বাদ পড়েছেন। তাদের স্থানে অন্যান্যদের প্রার্থীপদ দেওয়া হয়েছে। 

ময়মনসিংহ বিভাগে সবচেয়ে বেশি প্রার্থী বদল হয়েছে। জামালপুর, নেত্রকোনা ও শেরপুরে প্রার্থী পরিবর্তন হয়েছে। 

সিলেটের সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার আসনে নতুন প্রার্থী মনোনয়ন পেয়েছেন।

বরিশাল থেকে পূর্বের দুইজন সংসদ সদস্যকে মনোনয়ন দেওয়া হয় নি। বরিশাল ৪ আসনে পংকজ নাথের জায়গায় প্রার্থী হবেন শাম্মী আহমেদ। বরগুনা ২ আসনে শওকত হাচানুর রহমান রিমনের পরিবর্তে লড়বেন সুলতানা নাদিরা। 

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button