অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় | জানুন বিস্তারিত

টাকার প্রয়োজন আর বিপদ কখন কাউকে বলে কয়ে আসে না। যখন তখন চলে আসে এবং আমাদেরকে ওই পরিস্থির সাথে নিজেদের মানিয়ে নিয়ে চলতে হয় এবং ভাবতে হয় কিভাবে এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসে নতুন উদমে বাচতে হবে। তবে টাকার প্রয়োজন পড়লেই আমরা কিন্ত সজ্ঞে সজ্ঞে পেয়ে যায় না। যেকোনো ব্যাংকের কাছে গিয়ে লোনের জন্যে আবেদন করলে, সে এক লম্বা প্রসেসের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। যার সময় সবসময় আমাদের হাতে থাকে না। এই জন্যে আমাদের সবসময় অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় এর ব্যাপারে অবগত থাকতে হবে। যাতে করে আমরা যেকোনো পরিস্থিতিতে রুখে দাড়াতে পারি।

অনলাইন লোনের কথা শুনে আপনি নিশ্চয় অবাক হচ্ছেন না, তাই না? হওয়ার কথাও না, কারন এই ডিজিটাল বাংলাদেশে যখন সবকিছুই ধীরে ধীরে অনলাইন ভিত্তিক হচ্ছে তবে লোন কেন নয়? এমন অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা অনলাইনে কিছু স্টেপের মাধ্যমেই আপনাকে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী টাকা লোন দিবে। তবে এর জন্যে আপনাকে অবশ্যই অনলাইনে লোনের সঠিক উপায় গুলো জানতে হবে। এই আর্টিকেলে আমরা সেই উপায় গুলো নিয়েই আলোচনা করবো।

অনলাইনে লোন নেওয়ার জন্য যে যে জিনিষগুলো প্রয়োজনঃ

১. ব্যক্তিগত পরিচয়ের প্রমাণঃ

কেওয়াইসি সম্পর্কিত নথিপত্র, যেমন একটি আধার কার্ড, একটি মোবাইল নম্বর যা আধার কার্ডের সাথে লিঙ্ক করা আছে এবং একটি প্যান কার্ডও প্রয়োজন৷

২. আপনার বাড়ির ঠিকানা ও তার প্রমাণঃ

আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স/পাসপোর্ট/ফটো আইডির পাশাপাশি একটি ইউটিলিটি বিল (যেমন, টেলিফোন বিল/ভাড়া) আনতে হবে।

৩. অ্যাকাউন্টধারীর ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং অ্যাকাউন্টের বিশদ বিবরণ।

৪. আয়ের প্রমাণঃ

বেতনভোগী ব্যক্তিদের জন্য পে-স্লিপ এবং স্ব-নিযুক্ত ব্যক্তিদের ফটোগ্রাফ সহ আর্থিক তথ্যের বিবৃতি।

৫. কর্মচারীর বিবরণ বা ব্যবসার বিবরণ:

কোম্পানির নাম, অবস্থান, কাজের অভিজ্ঞতা এবং কাজের স্থায়িত্ব।
এই নথিগুলি জমা দেওয়ার যোগ্য হওয়ার জন্য, বেতনভোগী এবং স্ব-নিযুক্ত ব্যক্তিদের তাদের নথি জমা দেওয়ার সময় বয়স ২১ থেকে ৫৮ বছরের মধ্যে হতে হবে৷
লোনের জন্য যোগ্যতা অর্জনের জন্য তাদের প্রতি মাসে ন্যূনতম ১৫০০ টাকা আয় থাকতে হবে।
সমস্ত নথি অনুমোদিত হওয়ার পরে ঋণের পরিমাণ একই সাথে আপনার অনুমোদিত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে স্থানান্তর করা হবে।
আয়ের প্রমাণ এখানে একটি প্রয়োজনীয়তা, কারণ এটি একটি ধারণা দেয় যে ঋণগ্রহীতার সময়মতো ঋণ পরিশোধ করার ক্ষমতা আছে কি না।

অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় সমুহঃ

১. Bajaj Finserv:
• ইন্টারেস্ট রেট- ১২.৯৯%
• লোন – ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত
আপনি এই অ্যাপের সাহায্যে ঋণের জন্য আবেদন করার পর 24 ঘন্টার মধ্যে আপনার কাছে টাকা পাঠানো হবে।

নারী, সরকারি খাতের কর্মচারী, কলেজের অধ্যাপক, শিক্ষক এবং অন্যান্য পেশাজীবীদের জন্য জামানত-মুক্ত ঋণ রয়েছে।
এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনাকে বিশেষ বৈশিষ্ট্য সহ একটি ব্যক্তিগত ঋণের জন্য আবেদন করতে সক্ষম করে যা সুদের-ইএমআই-এর ৪৫% পর্যন্ত কিস্তির পরিমাণ হ্রাস করে।
আপনি যদি ইতিমধ্যেই অনুমোদন পেয়ে থাকেন, তাহলে কোনো অতিরিক্ত ঝামেলা ছাড়াই আপনি যত খুশি তত ঋণের জন্য আবেদন করতে পারেন।

২। বিকাশ অ্যাপ
• ইন্টারেস্ট রেট- 2%
• লোন – ৫০০ থেকে ২০,০০০ টাকা

এটি বাংলাদেশের বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় লেনদেনের মাধ্যম। এই জন্যেই এই প্রতিষ্ঠানটি অনলাইন লোনের সুবিধা নিয়ে এসেছে। তবে এই সুবিধা শুধুমাত্র কিছু গ্রাহকরা নিতে পারে।
সিটিব্যাঙ্ক যদি মনে করে যে আপনি এই ঋণের জন্য যগ্য, তাহলে আপনি আপনার বিকাশ অ্যাপের এই লোন বিকল্প থেকে এটি নিতে পারেন। ঋণের পরিমাণ আপনার ক্রেডিট মূল্যায়ন দ্বারা নির্ধারিত হয়। সিটি ব্যাংক আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে আপনার ডেটা তৈরি ও বিশ্লেষণ করবে।
ঋণ নেওয়ার তিন মাসের মধ্যে নির্ধারিত তারিখে, গ্রাহকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবে তিনটি কিস্তিতে একই পরিমাণ পরিশোধ করবে। এই বিষয়ে, গ্রাহক পেমেন্ট তারিখের আগে SMS এবং অ্যাপের মাধ্যমে একটি বিজ্ঞপ্তি পাবেন। পরবর্তী ঋণ বিতরণে, ঋণগ্রহীতা সময়মতো ঋণ পরিশোধ করছেন কি না তাও বিবেচনা করা হবে।

গ্রাহক নির্ধারিত তারিখের আগে এই ঋণ পরিশোধ করলে সুদের ব্যয় হ্রাস পায়। কিস্তির নির্ধারিত তারিখে তার বিকাশ অ্যাকাউন্টে প্রয়োজনীয় ব্যালেন্স না থাকলে বা নির্ধারিত তারিখের আগে তিনি তার ঋণ পরিশোধ না করলে গ্রাহককে দেরী ফি নেওয়া হবে। ধার করা পরিমাণের উপর দেরী চার্জ ২% ( বার্ষিক)। এটি সবচেয়ে সহজ অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায়।

৩। PaySense:
• ইন্টারেস্ট রেট- ১.৪-২.৩৩%
• লোন – ৫০০০ থেকে ৫ লাখ পর্যন্ত
আপনি Paysense অ্যাপ ব্যবহার করে স্মার্টফোন বা ল্যাপটপের সাহায্যে আপনার ঋণের যোগ্যতা পরিমাপ করতে পারেন, এটি একটি সহজ তাত্ক্ষণিক অর্থ অ্যাপ যা আপনাকে কোনো ঝামেলা ছাড়াই দ্রুত নগদ ঋণ পেতে সাহায্য করবে।

আপনি যদি আপনার KYC তথ্য এবং ঋণের পরিমাণ আমাদের প্রদান করেন তাহলে পাঁচ ঘণ্টার মধ্যে ঋণ পাওয়া সম্ভব।
এই অ্যাপটি আপনাকে আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে 5000 টাকা থেকে 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে সাহায্য করে।
এখানে, আপনি সহজেই একটি EMI ক্যালকুলেটরের সাহায্যে আপনার মাসিক বকেয়া ব্যালেন্স গণনা করতে পারেন।

৪। SmartCoin:
• ইন্টারেস্ট রেট- ২.৫-৩%
• লোন – ১০০০ থেকে ২৫,০০০ পর্যন্ত
SmartCoin অ্যাপটি ধার দেওয়ার জন্য একটি ব্যবহারকারী-বান্ধব প্ল্যাটফর্ম যা এর ব্যবহারকারীদের অর্থ ধার করতে দেয়।

আপনি সহজেই এখানে স্বল্পমেয়াদী ঋণ পেতে পারেন, হয় SmartCoin এর Mini Loan অ্যাপ থেকে অথবা SmartCoin এর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। SmartCoin এর মিনি লোন অ্যাপের সাহায্যে ১০০০ থেকে ২৫,০০০ টাকার মধ্যে একটি লোন পাওয়া যেতে পারে।

এখানে ঋণ পেতে হলে বেতনের ন্যূনতম কোনো পরিমান মেটাতে হয় না।
এই অ্যাপটির ফলে, ব্যবসায়ী, সহায়ক নির্বাহী, বেতনভোগী পেশাজীবী, ব্যবস্থাপক, শিক্ষক এবং গৃহকর্মী মেয়েরা খুব কম সুদে সহজে ঋণ পেতে পারেন।

৫। EarlySalary:
• ইন্টারেস্ট রেট- ২-২.৫%
• লোন- ৩০০০ থেকে ২ লাখ পর্যন্ত

EarlySalary অ্যাপের সাহায্যে, আপনি দ্রুত এবং সহজে একটি ঋণ পেতে সক্ষম হবেন, এটি একটি ঋণ পাওয়ার সবচেয়ে সহজ উপায়গুলির মধ্যে একটি করে তুলেছে।
এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে, আপনি যে পরিমাণ তহবিলের জন্য আবেদন করেছেন তার উপর ভিত্তি করে আপনি 2% বা তার বেশি মাসিক সুদের হারে 2 লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন।

৬। Money View:
• ইন্টারেস্ট রেট- ১.৩৩-২%
• লোন – ১০,০০০ থেকে ৫ লাখ পর্যন্ত

মাত্র দুই ঘন্টার মধ্যে, আপনি মানি ভিউ পার্সোনাল লোন অ্যাপের মাধ্যমে একটি ব্যক্তিগত লোন পেতে পারেন, যা Android এবং iOS উভয়ের জন্যই উপলব্ধ।
এটি ওয়েবে একটি ব্যক্তিগত ঋণের জন্য আবেদন করার একটি সহজ, দ্রুত এবং কাগজবিহীন উপায় যা ১০০% কাগজবিহীন, দ্রুত এবং ব্যবহার করা সহজ৷

এই বিভাগে, আপনি ১০,০০০ টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে পারেন।
৩ থেকে ৫ মাসের মধ্যে আপনার পক্ষে ঋণ পরিশোধ করা সম্ভব। এইটি সবচেয়ে দ্রততম অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায়।

পরিশেষে
জীবন যুদ্ধে বিভিন্ন সময় আমাদের বিভিন্ন সমস্যার মোকাবেলা করতে হয়। এর মধ্যে হঠাত টাকার প্রয়োজন একটি। এমন সময় অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় গুলো আর্শিরবাদ হিসাবে কাজ করবে। তো এখন আর টাকার প্রয়োজন পড়লে আর দুশ্চিতায় মাথায় হাত না দিয়ে আপনার হাতে থাকা ফোন বা ল্যাপটপের সাহায্যে উপরিক্ত অ্যাপ বা ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

ফ্রান্সে যেতে কত টাকা লাগবে

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button